3:06 pm - Wednesday September 26, 1404

বাবার আস্তানায় মিলল অবৈধ গর্ভপাত আর বেওয়ারিশ লাশ

কারাদণ্ডপ্রাপ্ত ভারতের ধর্মগুরু গুরমিত রাম রহিম সিং-এর ডেরায় বেশ কিছু বেওয়ারিশ মরদেহ মিলেছে। শুধু তাই নয়, ডেরা সচ্চা সওদায় পুলিশের অভিযানে বেরিয়ে আসছে একের পরে এক চাঞ্চল্যকর তথ্য। গুরমিত রাম রহিম সিং’এর ডেরায় একটি স্কিন অর্থাৎ চামড়ার ব্যাংকও মিলেছে।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়, ডেরা সচ্চা সওদার মধ্যে চালু এক স্কিন ব্যাংক পুলিশ বন্ধ করে দিয়েছে। রোববারও ডেরায় তল্লাশি অভিযান চলে। ডেরার হাসপাতালে অভিযানকালে অনুসন্ধানকারীরা স্কিন ব্যাংকের সন্ধান পান। লাইসেন্স ছাড়া এই স্কিন ব্যাংকটিকে তারা সিলগালা করে দেন। এনডিটিভির খবরে বলা হয়, অনেকটা ব্লাড ব্যাঙ্কের মতোই এই স্কিন ব্যাংক। এখানে মৃতদেহের ত্বক সংরক্ষণ করে রাখা হয়। এই ত্বক সাধারণত পুড়ে যাওয়া অথবা অ্যাসিড হামলায় আক্রান্ত মানুষের ত্বক প্রতিস্থাপনে ব্যবহৃত হয়।

 

২০১৬ সালে ডিসেম্বরে এই স্কিন ব্যাংক উদ্বোধন করা হয়েছিল। রাম রহিমের দাবি ছিল, এটি উত্তর ভারতের প্রথম স্কিন ব্যাংক। যে কোনো ব্যক্তি তার ত্বককে এখানে দান করতে পারেন। আর তার নিয়ম অনেকটা মরদেহ দান করার মতোই। কিন্তু কারা মরদেহ দান করেছিলেন তার কোনো তালিকা হাসপাতালে নেই।

 

তাছাড়া এখানে ঠিক ক’জনের মৃতদেহ জমা পড়েছিল এবং তাদের নিয়ে কী করা হয় সেই ব্যাপারেও কোনো তথ্য পাওয়া যায়নি। হাসপাতালে অবৈধ গর্ভপাত ব্যবস্থার প্রমাণও মিলেছে। তদন্তকারীরা এখন এমটিপি (Medical Termination of Pregnancy) আইনে রাম রহিমের বিরুদ্ধে মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছেন।

স্কিন ব্যাংক ছাড়াও রাম রহিম সিংয়ের আবাস থেকে নারীদের হোস্টেল পর্যন্ত মাটির নিচে গোপন ট্যানেলের সন্ধান পেয়েছেন তদন্তকারী দল। এছাড়াও, একে ৪৭ রাইফেলের বাক্সে কার্টিজও পেয়েছেন তারা। পাওয়া গেছে বিস্ফোরক তৈরির অবৈধ কারখানাও।

প্রায় ৮শ’ একর জমিতে গড়ে তোলা ডেরায় সব ধরনের সুবিধাই রয়েছে। ভক্তদের অর্থের বিনিময়ে সেখানে সেসব সুবিধা মিলত বলে অনুসন্ধানে জেনেছেন তদন্তকারীরা। সোমবারও ডেরা সাচা সৌদায় তল্লাশি অভিযান চলবে বলে এনডিটিভি জানিয়েছে।

Filed in: অপরাধ-জগত
[X]