3:06 pm - Sunday September 26, 1058

দাঁতের উপকারে চিকিৎসকের ৬ টিপস!

আমরা সকলেই আমাদের ত্বক এবং চুল নিয়ে চিন্তা করি, ভাবি এবং নিয়মিত পরিচর্যা করি। অবহাওয়া জনিত কারণে হোক অথবা খুব সাধারণ কোন অসুস্থতা জনিত কারণে হোক, চুল একটু বেশী পড়া শুরু করলেই আমরা সকলে উদ্বিগ্ন হয়ে পড়ি এবং সেটার সমাধানের জন্যে নানান ধরণের পন্থা অবলম্বন করে থাকি। ত্বকের ক্ষেত্রেও একই কথা। হালকা রোদে পোড়া দাগ দেখা দিলেও আমরা অস্থির হয়ে পড়ি এবং কীভাবে সেই পোড়া দাগ দূর করা যাবে তার জন্য চেষ্টা করতে শুরু করি।

কিন্তু কেন যেন দাঁতের ব্যপারে আমরা সকলেই খুব হেলাফেলা করে থাকি। অনেক সময় নিয়মিত দাঁত মাজতেও গড়িমসি করে থাকি আমরা। অন্যান্য দাঁতের যত্ন নেওয়া তো বহু দূরের কথা। যে সকল কারণে, আমাদের অনেকেরই প্রায় সময় দাঁতের বিভিন্ন রকম সমস্যা দেখা দেয়। যা সঠিক সময়ে চিকিৎসার অভাবে খুব কষ্টদায়ক পর্যায়ে চলে যায়।
শরীরের অন্যান্য অংশের মতো সকলের উচিৎ নিজের দাঁতের প্রতি যত্নবান হওয়া। আজকে দাঁতের জন্য কিছু টিপস দিয়েছেন ডা. জিনিয়া মাহমুদা কাইয়্যুম । এই সকল অতি সাধারণ কিন্তু জরুরি ব্যপারগুলো মেনে চলতে পারলেই আপনার দাঁত থাকবে একদম সুরক্ষিত।

 

টিপস ১: প্রতিবার মাংস খাওয়ার পর ডেন্টাল ফ্লস ব্যবহার করতে হবে। অনেকেই টুথপিক ব্যবহার করে থাকেন। টুথপিক দাঁতের জন্য ভালো নয়। এছাড়া টুথপিক দাঁতের মাঝে জমে থাকা ময়লা পুরোপুরি বের করতেও পারে না। তাই নিয়মিত ডেন্টাল ফ্লস ব্যবহার করা দাঁতের স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী।

টিপস ২: অনেকেই দামী মাউথ ওয়াশ ব্যবহার করে থাকেন। সেক্ষেত্রে সবচেয়ে ভালো মাউথ ওয়াশ ঘরেই তৈরি করে নেওয়া যায়। এক গ্লাস কুসুম গরম পানিতে এক চা চামচ লবণ দিয়ে ভালো করে গুলিয়ে নিয়ে সেটা দিয়ে ভালো করে কুলি করতে হবে। এই মিশ্রণ আপনার দাঁতের জন্য তো বটেই, দাঁতের গাম এর জন্যেও খুব উপকারী। আপনার মুখের দুর্গন্ধও দূর হবে এটি দিয়ে নিয়মিত কুলি করলে।

টিপস ৩: কোন দুর্ঘটনায় মুখে বা দাঁতে আঘাত পেলে অনেকেই খুব একটা পাত্তা দেয় না। কিন্তু মাসখানেক পর দেখা যায় যে, আঘতপ্রাপ্ত দাঁত ধীরে ধীরে কালো হয়ে যাচ্ছে। তাই মুখে বা দাঁতে আঘাত পেলে দ্রুত দাঁতের ডাক্তারের শরণাপন্ন হতে হবে।
টিপস ৪: দুধ দাঁত পড়ে যাওয়ার পর নতুন দাঁত উঠলে অনেকের খুব শার্প বা চোখ দাঁত ওঠে। এছাড়া কোন দুর্ঘটনার কারণে অথবা দাঁতে ক্যারিজের ফলে দাঁত অর্ধেক ভেঙে গিয়ে বাকী অর্ধেক মাড়ির সাথে আটকে থাকে। এমন ধরণের কোন অবস্থা হলে খুব দ্রুত দাঁতের ডাক্তারের কাছে যেতে হবে। কারণ এমন শার্প দাঁত অথবা মাড়ির সাথে আটকে থাকা অর্ধেক ভাঙ্গা দাঁতের সাথে চোয়ালের মাসলে খোঁচা লেগে ঘায়ের সৃষ্টি হতে পারে। যা অনেক সময় ক্যান্সারেও রূপ নিতে পারে।

টিপস ৫: দাঁত দিয়ে নখ কাটার অভ্যাস একেবারেই পরিহার করতে হবে। দাঁত দিয়ে নখ কাটলে দাঁতের এনামেল ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে থাকে।

টিপস ৬: মুখ খোলা রেখে ঘুমানোর অভ্যাস থাকে অনেকের। এমন অভ্যাস থাকলে খুব দ্রুত সেটা বাদ দিতে হবে। কারণ, মুখ খোলা রেখে ঘুমালে মুখের ভেতরের লালা (ফ্যালাইজা) শুকিয়ে যায়, যা থেকে অনেক সময় দাঁতে ক্যারিজের সৃষ্টি হয়।
এছাড়াও ডা. জিনিয়া বলেছেন নিয়মিত দুই বেলা দাঁত মাজতে। পান, চা, বিড়ি, সিগারেট, হুক্কা সেবন থেকে দূরে থাকতে হবে এবং বছরে দুই বার দাঁতের ডাক্তারের কাছে দাঁতের পরীক্ষা করাতে হবে।

 

Filed in: স্বাস্থ্য
[X]