7:41 am - Tuesday February 21, 2017

বাগেরহাটে মা-বাবাকে কুপিয়ে কলেজছাত্রী মেয়েকে অপহরণ

185292_126-300x180বাগেরহাটের শরণখোলায় গভীর রাতে মা-বাবাকে কুপিয়ে সান্তা (২১) নামে এক অনার্স পড়ুয়া ছাত্রীকে অপহরণ করা হয়েছে।গতকাল শুক্রবার দিনগত রাত দেড়টার দিকে এ ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলা সদরের রাজৈর বাসস্ট্যান্ড এলাকায়। ঘটনার পর রাতেই আহত দু’জনকে গুরুতর অবস্থায় শরণখোলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। এদিকে, এ ঘটনায় সচেতন নাগরিক কমিটির ব্যানারে বিক্ষোভ সমাবেশের কর্মসূচি ঘোষণা দেয়া হয়েছে।

এলাকাবাসী ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, ওই সময়ে উপজেলা সদর সংলগ্ন খালের বিপরীত পাড়ের রাজৈর এলাকার দুলু গাজীর মেয়ে ও পিরোজপুরের মহিলা কলেজের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের ২য় বর্ষের ছাত্রী ফাতেমা-তুজ-জোহরা সান্তাকে অপহরণের উদ্দেশে হানা দেয় উপজেলার রায়েন্দা বাজারের বাসিন্দা সবুর আকন ও তার ছেলে সজিব আকনসহ অন্তত ২০/২১ সশস্ত্র ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসী। তারা পুলিশ পরিচয় দেয়ার পর দরজা খোলার সাথে সাথে দুলু গাজী ও তার স্ত্রী আঞ্জুমান আরা বেগমকে রাম দা দিয়ে মাথায়, পিঠে, মুখেসহ শরীরের বিভিন্ন অংশে কুপিয়ে রক্তাক্ত জখম করে। এরপর পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী সান্তাকে মুখ বেঁধে বাড়ি সংলগ্ন খালের ঘাটে আগে থেকে অবস্থান করা ট্রলারে করে নদীর দিকে পালিয়ে যায়। ঘটনার সময় সন্ত্রাসীরা নগদ ৩ লাখ ৫০ হাজার টাকা ও ২০/২৫ ভরি ওজনের স্বর্ণালংকার লুট করে নিয়ে যায়।

 

 

 

এব্যাপারে বক্তব্য নেয়ার জন্য সবুর আকনের ০১৭১৭-২৭১১৪৬ নাম্বার মোবাইল ফোনে বারবার চেষ্টা করলেও তা বন্ধ পাওয়া গেছে।

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন দুলু গাজী জানান, তার মেয়ে সান্তার সাথে ২০১৫ সালের ২৯ জানুয়ারি বিয়ে হয় রায়েন্দা বাজারের বাসিন্দা সবুর আকনের ছেলে সজিব আকনের। বিয়ের পর থেকে শ্বশুর, শাশুড়ি ও স্বামী কর্তৃক সান্তার উপর শারীরিকভাবে নির্যাতন শুরু হলে মাত্র ১০ মাসের মাথায় বাধ্য হয়ে সান্তা ডিভোর্স দেয় স্বামী সজিবকে।

 

এ নিয়ে উভয় পক্ষের মধ্যে মামলা ও পাল্টা মামলা হয়। সজিব গংদের দায়েরকৃত মামলা দু’টি মিথ্যা প্রমাণিত হলে ক্ষিপ্ত হয়ে তার মেয়ে ও তাকে শায়েস্তা করতে বিভিন্ন ষড়যন্ত্র শুরু করে সাবেক স্বামী সজিব ও তার পিতা সবুর আকন। ঘটনার পর তার আশংকা, ঢাকা থেকে ভাড়ায় আনা সন্ত্রাসীরা সান্তাকে গুম অথবা মেরে ফেলতে পারে। তার মেয়েকে দ্রুত উদ্ধারের জন্য তিনি প্রশাসনের আশু হস্তক্ষেপ দাবি করেছেন।

শরণখোলার থানার ওসি আ: জলিল জানান, ঘটনার খবর পেয়ে রাতেই পুলিশ পাঠিয়ে বলেশ্বর নদীসহ সম্ভাব্য সকল স্থানে অভিযান চালানো হয়েছে। অপহৃতকে উদ্ধারে অভিযান অব্যাহত আছে এবং মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

Filed in: অপরাধ-জগত
[X]